অনুসন্ধান - অন্বেষন - আবিষ্কার

টাইগারপাস-সিআরবির শতবর্ষী গাছ কাটলে কঠোর আন্দোলন

0
.

নগরীর টাইগারপাস-সিআরবির শতবর্ষী গাছ ও সড়ক ধবংস করে র্যাম্প নির্মাণের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের ঘোষণা না আসলে জোরদার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে বলে জানিয়েছে আন্দোলনকারী নাগরিক সমাজ।

আজ সোমবার (০১এপ্রিল) বিকেলে নগরীর টাইগারপাস মোড়ে শতবর্ষী গাছের নিচে প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ সমাবেশ এই হুসিয়ারী জানায় তারা।

আন্দোলনকারী নাগরিক সমাজ চট্টগ্রাম এর উদ্যোগে সমাবেশে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযুদ্ধের গবেষক ডা মাহফুজুর রহমান বলেন, যদি র্যাম্প করতে হয় অনেক জায়গা আছে এখানে গাছ কেটে কেন করতে হবে। এখানে কোন গাছ কাটা চলবে না। প্রকৃতি অক্ষুন্ন রেখে যে কোনো কিছু করতে পারে, তারা সেটা করুক। মূল লক্ষ্য এসব শতবর্ষী গাছ ও দ্বিতল রাস্তাটি নষ্ট করে সিআরবির পরিবেশ ও প্রতিবেশ ধ্বংস করা। তারপর সিআরবিতে থাবা বসানো। শতবর্ষী গাছ কেটে নতুন চারা লাগানোর কোনো প্রয়োজন নেই।

.নাট্যজন ও সাংবাদিক প্রদীপ দেওয়ানজির সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্যে রাখেন, অধ্যাপক মো ইদ্রিস আলী, পেশাজীবি পরিষদের ডা একিউএম সিরাজুল ইসলাম,বিএফইউজের যুগ্ম মহাসচিব মহসীন কাজী, পিপলস ভয়েস এর সভাপতি শরীফ চৌহান, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সহ সভাপতি চৌধুরী ফরিদ,খাল নদী রক্ষা কমিটির আলীউর রহমান, লেখিকা মোহছেনা ঝর্না,সাংবাদিক ঋত্তিক নয়ন, নগর পরিকল্পনাবিদ স্থপতি আশরাফুল ইসলাম,সাংবাদিক সারোয়ার আমিন বাবু, যুবলীগ নেতা সাজ্জাদ হোসেন, সাংবাদিক কামরুজ্জামান রণি।

সাংবাদিক প্রীতম দাশের সঞ্চালনায় সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক সুপ্রতীম বড়ুয়া, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের যুগ্ম সম্পাদক সাইদুল ইসলাম, সাংবাদিক আমিনুল ইসলাম মুন্না, পিপলস ভয়েস সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মোহাম্মদ আতিকুর রহমান, যুব নেতা শিবু চৌধুরী, সাংবাদিক মিনহাজুল ইসলাম, কায়সার চৌধুরী, সাংস্কৃতিক সংগঠক মোরশেদুল আলম।

বক্তাগণ কলেন- যারা ৬ কিলোমিটার রাস্তা করতে ১৮টি গাছ কাটে তারা মানুষ নামের শকুন। জলাবদ্ধতা নিরসনে তাদের দারুণ দক্ষতা আমরা দেখেছি। যারা সিআরবি ধ্বংস করতে পারেনি তারা এখন সিআরবির পরিবেশ ধ্বংস করতে চায়। তারা বলছে মাত্র ৪৬টি গাছ কাটা হবে। এটা কেমন মুর্খতা। তারা শতবর্ষী গাছ কেটে চারা লাগাতে চায়। ধিক্কার জানানোর ভাষা আমাদের নেই। অপউন্নয়নের নামে বাণিজ্য থেকে সরে আসুন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জাগ্রত আছেন। তরুণদের নিয়ে আমরা আন্দোলন করে সিডিএকে সরে আসতে বাধ্য করব।

এত বিকল্প থাকতে কেন গাছ কেটে আর দ্বিতল রাস্তা ধংস করে কেন র্যাম্প করতে হবে সেটা বোধগম্য নয়। এটা কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। দ্রুত বিকল্প স্থানে র্যাম্প করার ঘোষণা না দিলে লাগাতার আন্দোলন করে আমরা টাইগারপাস সিআরবির এই সড়ক ও গাছ রক্ষা করব।

সমাবেশে প্রতিবাদী ছড়া পাঠ করেন ছড়াকার উৎপল বড়ুয়া।